চকলেটে ত্বকচর্চা

chock2রয়া মুনতাসীর : চকলেট। এটি এখন আর শুধু খাবারই নয়, রূপচর্চার অনুষঙ্গও বটে। চমকে গেলেন? ভাবছেন, সৌন্দর্যচর্চায় চকলেটের আবার কী কাজ? আয়ুর্বেদিক রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা তুলে ধরলেন রূপচর্চায় চকলেটের বিভিন্ন উপকারিতার কথা।

শীতকালে শুষ্ক ত্বকের অধিকারীরা একটু বিপদেই থাকেন। কিছুক্ষণ পরপরই মুখ, হাত ও পায়ে ক্রিম লাগাতে হয়। এ ধরনের ত্বকের জন্য চকলেট উপকারী। ঠান্ডা ও শুষ্ক হাওয়ায় ত্বকের নির্জীব ভাব দূর করে দেবে অনেকাংশেই। তবে তৈলাক্ত ত্বক ও সাধারণ ত্বকের অধিকারী ব্যক্তিরাও ফেসিয়াল মাস্ক হিসেবে চকলেট ব্যবহার করতে পারবেন। দোকানে যে চকলেট বারগুলো পাওয়া যায় সেগুলো দিয়েও করা যাবে ফেসিয়াল। তবে সেই চকলেট বারগুলোতে বাদাম, কিশমিশের মতো উপাদান থাকা যাবে না। রাহিমা সুলতানা বলেন, ‘অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর চকলেট বয়সের ছাপকে থামিয়ে রাখতে সাহায্য করে। ত্বকের প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা ধরে রাখে, রোদে পোড়া থেকে রক্ষা করে এবং সেই সঙ্গে ত্বক আরও টান টান করে। এ ছাড়া চকলেট ব্যবহারে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়, ভাঁজ পড়া দূর হয় এবং দাগ ও লালচে ভাব দূর করে।’

ত্বকের ধরন অনুযায়ী মাস্ক তৈরি করে সপ্তাহে দু-তিনবার লাগাতে পারেন। একঝলকে জেনে নেওয়া যাক কোন ত্বকের জন্য কী ধরনের মাস্ক মানানসই।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য

গলানো চকলেট ২ টেবিল চামচ, বেসন ১ চা-চামচ ও টকদই ১ চা-চামচ মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক ত্বকের জন্য

মাখন অথবা অলিভ অয়েল ১ চা-চামচ, গলানো চকলেট ১ টেবিল চামচ ও দুধ মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

স্বাভাবিক ও মিশ্র ত্বকের জন্য

গলানো চকলেট ও দুধ মিশিয়ে ব্যবহার করুন। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য

২ টেবিল চামচ গলানো চকলেটের সঙ্গে ১ চা-চামচ সয়াবিন গুঁড়া মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

মন্তব্য