কানাডার জীবনযাপন প্রণালী অভিবাসীদের স্বাস্থ্যের ওপর বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করছে

hospital

ইন্সটিটিউট ফর ক্লিনিক্যাল ইভ্যালুয়েটিভ সায়েন্স (আইসিইএস)-এর এক নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে, যেসব অভিবাসী বহুদিন আগে অন্টারিওতে এসেছেন তাদের হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্যগত অবস্থা নবাগত অভিবাসীদের চেয়ে অনেক খারাপ। আইসিইএস-এর ডক্টরাল ফেলো এবং নতুন সমীক্ষার মুখ্য গবেষক মারিয়া চিউ বলেন, ‘‘আমরা অন্টারিওর দীর্ঘদিনের বাসিন্দা অভিবাসীদের ওপর নবাগতদের চেয়ে অনেক বেশি পরিমাণে ভিন্ন সংস্কৃতি গ্রহণের প্রতিক্রিয়া দেখতে পেয়েছি এবং এর ফলে তাদের হৃদরোগের ঝুঁকি অনেক বেশি দেখা গেছে। এছাড়া, বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর লোকেদের মধ্যে এই হৃদরোগের ঝুঁকির মাত্রাও ভিন্ন। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা দেখা গেছে চীনা জাতিগোষ্টীর লোকেদের মধ্যে। এর পরই রয়েছে শ্বেতাঙ্গ, কৃষ্ণাঙ্গ ও দক্ষিণ এশীয় জাতিগোষ্ঠীর লোকেরা।

সমীক্ষায় বলা হয়, যে চারটি জাতিগোষ্ঠীর লোকেদের মধ্যে এই পরীক্ষা চালানো হয় তাদের মধ্যে চীনা ও ইউরোপীয় বংশোদ্ভূতরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কানাডীয় জীবনযাত্রা প্রণালী দিয়ে। আর যত বেশিদিন ধরে তারা এখানে রয়েছে ক্ষতির পরিমাণও ততই বেশি। সমীক্ষায় সাম্প্রতিক সময়ে (১৫ বছরের কম) আসা অভিবাসীদের হৃদরোগের ঝুঁকির প্রবণতার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে (১৫ বছর বা তার বেশি এবং কানাডায় জন্মগ্রহণকরী) এখানে বসবাসকারী অভিবাসীদের হৃদরোগের ঝুঁকির প্রবণতার তুলনামূলক বিশ্লেষণ করা হয়। এতে অন্টারিওতে বসবাসরত শ্বেতাঙ্গ, দক্ষিণ এশীয়, চীনা ও কৃষ্ণাঙ্গ অভিবাসীদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এতে বলা হয়, চীনা এবং শ্বেতাঙ্গদের মধ্যে হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্যগত সমস্যার অবনতির ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে ক্রমবর্ধমান হারে ডায়াবেটিকের উপস্থিতি। ওই দু’টি গ্রুপের লোকেদের মধ্যে যারা দীর্ঘদিনের অভিবাসী তাদের মোটা হওয়ার হার নতুন অভিবাসীদের তুলনায় ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ বেশি। কৃষ্ণাঙ্গ ও দক্ষিণ এশীয়দের মধ্যে হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্যগত সমস্যার মূল কারণ হলো তাদের ধূমপানের মাত্রা বেড়ে যাওয়া। সমীক্ষায় দেখা যায়, কানাডায় জন্মগ্রহণকারী বা অন্তত ১৫ বছর ধরে কানাডায় বসবাস করছেন এমন কৃষ্ণাঙ্গ ও দক্ষিণ এশীয় নারীদের ধূমপায়ী হওয়ার সম্ভাবনা অন্যদের চেয়ে তিন থেকে চারগুণ বেশি। কানাডায় দীর্ঘদিন ধওে অবস্থানের সঙ্গে সঙ্গে অনেক জাতিগোষ্ঠীর লোকদের মধ্যে ধূমপান বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ফলমূল ও শাকসবজি খাওয়ার পরিমাণ কমে যাওয়ার লক্ষণ দেখা যায়।

‘‘অন্টারিওর সাম্প্রতিক অভিবাসী বনাম দীর্ঘমেয়াদী বাসিন্দদের কার্ডিওভাসক্যুলার রিস্ক ফ্যাক্টর প্রোফাইলস: বহুজাতিগোষ্ঠীগত সমীক্ষা’’ শিরোনামের এই সমীক্ষাটি গত ৯আগস্ট কানাডিয়ান জার্নাল অব কার্ডিওলোজিতে প্রকাশিত হয়। সমীক্ষার ফলাফলে যা পাওয়া গেছে তা হলো :

১.   প্রতিটি জাতিগোষ্ঠীর ক্ষেত্রেই দেখা গেছে, সমীক্ষায় দুই বা ততোধিক হৃদরোগের লক্ষণাক্রান্ত অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা দীর্ঘমেয়াদে কানাডায় বসবাসকারীদের মধ্যে বেশি।

২.   নতুন ও পুরনো অভিবাসীদের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্তদের মধ্যকার ব্যবধান সবচেয়ে বেশি হলো চীনাদের মধ্যে। এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে শ্বেতাঙ্গ, কৃষ্ণাঙ্গ ও দক্ষিণ এশীয়রা।

৩.   ঘটনাচক্রে, যে চীনাদের মধ্যে আগে হৃদরোগের লক্ষণ সবচেয়ে কম দেখা গিয়েছিলো পাশ্চাত্য সংস্কৃতির সংস্পর্শে আসার পর তাদেরই স্বাস্থ্যগত অবস্থার সবচেয়ে অবনতি ঘটেছে।

মন্তব্য