ওষ্ঠ-অধরে নানান রঙের খেলা

actress-sarah-jane-bollywood-movie-game-06

হাবীবাহ্ নাসরীন : গরম এবং বর্ষার এই স্যাঁতস্যাঁতে সময়টাতে গ্লস বা ক্রিম ধরনের লিপস্টিক এড়িয়ে চলাই ভালো। কারণ এতে অনেক সময় অস্বস্তি লাগতে পারে। তা ছাড়া গ্লসের তেলতেলেভাবের কারণে ত্বকেও তৈলাক্তভাব বেড়ে যেতে পারে। এই সময়ে গাঢ় রঙ এড়িয়ে বরং হালকা এবং ন্যাচরাল রঙের লিপস্টিক বেশি মানানসই। পাশাপাশি অতিরিক্ত গাঢ় রঙে নিজেরও অস্বস্তি লাগার আশংকা থাকে। যাদের ত্বক অতিমাত্রায় সেনসেটিভ তাদের কখনোই লাল, মেরুন, গোলাপী বা গাঢ় রঙ ব্যবহার করা উচিত নয়। কারণ এ ধরনের গাঢ় রঙের লিপস্টিকে কেমিক্যালের পরিমাণ অনেক বেশি থাকে। ফলে তাদের ত্বকের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর। তাদের জন্য পেন্সিল জাতীয় যে লিপস্টিকগুলো বাজারে পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করাই ভালো। তাছাড়া যদি গ্ল­সিভাব আনতে চান তাহলে তারা লিপগ্লস ব্যবহার না করে বরং লিপবাম ব্যবহার করলেই ভালো করবেন। লিপস্টিক ব্যবহারের কিছুক্ষণ আগে নিমপাতার রসের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে তা ঠোঁটে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ধুয়ে তারপর লিপস্টিক লাগালে ক্ষতির আশংকা কমে আসে। লিপস্টিকের ক্ষেত্রে কেমন রঙ বেছে নেবেন এ সময়ের তরুণীরা সে বিষয়ে রূপবিশেষজ্ঞ মিউনি জানান, এই সময়ে লিপস্টিকের রঙয়ের ক্ষেত্রে কোরাল, নিউট্রাল, ন্যুড, গোলাপির বিভিন্ন শেড বেশি চলছে। তবে মেঘলা দিনে পরার জন্য রয়েছে বেশ কিছু মানানসই রঙ। নিয়ন রঙগুলোর মধ্যে অরেঞ্জ রঙটি হাল ফ্যাশনের লিপস্টিকের রঙে স্থান করে নিয়েছে। যে কোনো পোশাকের সঙ্গে হালকা করে নিয়ন অরেঞ্জ লিপস্টিক লাগান। যারা কমলা রঙ ব্যবহার করতে অভ্যস্ত নন তাদের জন্য একেবারে মানানসই আগুন লাল রঙটি। যে কোনো পার্টিতে এবং পার্টি পোশাকের সঙ্গে এই রঙের লিপস্টিক আনবে স্টাইলিশ ভাব। ক্যাটক্যাটে লাল নয়, রক্ত লালকে নিয়ে আসুন মেকআপ বক্সে। একদম ম্যাট নয়, আবার গ্লসি নয়। মাঝারি ধরনের ম্যাট রাখুন এই রক্ত লাল রঙের

লিপস্টিকে। প্রতিদিনের মেকআপে সব থেকে ভালো মানিয়ে যায় পিচ লিপস্টিক। যারা কর্মক্ষত্রে ফর্মাল পোশাক পরেন তাদের জন্য পিচ রঙ সব থেকে উপযোগী। বর্তমানে বেগুনি এবং গাঢ় পার্পলের শেড সবচেয়ে পারফেক্ট রঙ। বিশেষ করে রাতের পার্টির জন্য এই রঙটির চেয়ে ভালো লিপস্টিকের রঙ আর হতে পারে না।

লিপস্টিক শুধু ঠোঁটে লাগালেই হবে না, দেখতে যাতে সুন্দর আর পরিপাটি লাগে, নজর রাখতে হবে সেদিকেও। কয়েকটি দিকে খেয়াল রেখে লিপস্টিক লাগালে দেখতে আরও সুন্দর লাগবে-

* আপনার ত্বক, পোশাক, ব্যক্তিত্ব, দিনের সময়, চেহারা এ সবকিছু মাথায় রেখেই লিপস্টিক বেছে নিতে হবে।

* লিপস্টিকই সরাসরি কখনও ঠোঁটের ওপর না লাগিয়ে লিপব্রাশ দিয়ে হালকাভাবে লাগানোই ভালো।

* প্রথমে লিপস্টিক লাগান। তার ওপরে পাউডার দিন। এবার হালকা করে টিস্যু পেপার দিয়ে দুই ঠোঁটের মাঝে চাপা দিন।

* লিপস্টিক ডানদিক থেকে বামদিকে লাগাবেন। ঠোঁটের কোণের জন্য সামান্য ফাঁক রাখবেন।

* যাদের ঠোঁট মোটা তারা লিপস্টিক লাগানোর আগে লিপ পেন্সিল দিয়ে ঠোঁটের বাইরের অংশ কিছুটা ছেড়ে একে নিন।

* লিপ পেন্সিল লাইনারের বাইরের অংশ ফাউন্ডেশন ও পাউডার দিয়ে ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে দিন।

* লিপ লাইন দিয়ে আঁকা ঠোঁটের ভেতরের অংশ ভরে দিন পছন্দসই লিপস্টিক দিয়ে।

* যাদের ঠোঁট পাতলা ধরনের তারা ঠোঁটের বর্ডার ধরে ভিতরটা রঙ করুন।

বিভিন্ন শপিং মল কিংবা কসমেটিক্সের দোকানে একটু ঢুঁ মারলেই পেয়ে যাবেন আপনার পছন্দের লিপস্টিকটি। জর্ডানা, জ্যাকলিন, নেয়র, লা ফেম, ফ্লোরমার, মেবিলাইন, লরিয়েল, ম্যাক, এমইউএ, রিভাজ, ল্যাকমে অ্যাবসুলট, এভার বিউটি, রেভলন এবং আরও অনেক ব্র্যান্ডের লিপস্টিক এখন পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া ম্যাট লিপস্টিকের জন্য এক্সেল প্যারিসের লিপকালারও ব্যবহার করা যেতে পারে। লরিয়েল, রেভলন ইত্যাদি ব্র্যান্ডের চ্যাপস্টিকও ব্যবহার করতে পারেন।

মন্তব্য