কৌতুক

প্রথম বন্ধু :বলতো ওয়াক আউট আর নক আউটের মধ্যে পার্থক্য কী?

দ্বিতীয় বন্ধু :ওয়াক আউট হলো স্বেচ্ছায় নক আউট, আর নক আউট হলো অনিচ্ছায় ওয়াক আউট!

 

ডাক্তার :নার্স, আপনার রোগী কেমন উন্নতি করছে?

নার্স :উন্নতির বিষয়টা বড্ড স্লো, স্যার! সেই কবে থেকে চেষ্টা করেও ‘আপনি’ থেকে ‘তুমি’ তে নামাতে পারিনি!

 

স্ত্রী :এই সত্যি করে বলো না, কখন আমাকে তোমার সবচাইতে ভালো লাগে?

স্বামী :যখন তুমি তোমার বাবার বাড়িতে থাকো তখন!

 

ঝগড়াটে দুই প্রতিবেশীর মধ্যে কথা হচ্ছে

প্রথম প্রতিবেশী :এখানকার পরিবেশ আর মানুষ বসবাসের উপযোগী নেই। তাই আমরা এ মাসেই অন্যত্র চলে যাচ্ছি।

দ্বিতীয় প্রতিবেশী :যান, আপনারা চলে গেলে আমরাও একটা ভালো পরিবেশ পাব!

 

স্বামী :কী ব্যাপার বলো তো, আমি মশার কামড় সইতে পারি না একথা জানার পরও তুমি গেল দু’দিন ধরে মশারি টানাচ্ছো না যে…

স্ত্রী :ও মা! তুমিই না সেদিন আমার বাবাকে বললে যে এই সংসারের ঘানি টানতে গিয়ে তোমার রক্ত পানি করে উপার্জন করতে হচ্ছে। তাই ভাবলাম পাঁচ বছরের বিবাহিত জীবনে তোমার যা উপার্জন তাতে এতোদিনে তোমার শরীরে তো আর কোনো রক্ত থাকার কথা নয়। বরং সবই এতোদিনে পানি হয়ে গেছে। আর পানি খেতে কী মশারা আসবে বলো! -

 

দুই বন্ধুতে কথা হচ্ছে।

প্রথম বন্ধু :কিরে, তোর পরীক্ষার প্রস্তুতি কেমন?

দ্বিতীয় বন্ধু :আর বলিস না রে, এখনো সবই বাকি পড়ে আছে।

প্রথম বন্ধু :বলিস কী? আমার তো সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে, এখন শুধু একটা বাকি আছে।

দ্বিতীয় বন্ধু :কোনটা?

প্রথম বন্ধু :কলম, পেনসিল, ইরেজার, স্কেল, ক্যালকুলেটর, পরিচয়পত্র, প্রবেশপত্র সব প্রস্তুত! এখন শুধু পড়াটা বাকি আছে!

 

তুই এই মেয়েটাকেই বিয়ে করতে চাইছিস কেন?

কারণ সে অন্য সব মেয়ে থেকে আলাদা।

কীভাবে?

একমাত্র সেই আমাকে বিয়ে করতে রাজি হয়েছে, অন্য কেউ না!

 

গণিতের শিক্ষক সর্দারজির ছেলেকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘যদি ১ হাজার কেজি = টন হয়, তাহলে ৩ হাজার কেজি = কত?’

‘কেন, টন টন টন!’ সর্দারজি-পুত্রের ঝটপট জবাব।

 

সর্দারজি আর তার বন্ধু হিরালাল একসঙ্গে রাস্তা দিয়ে হাঁটছে। এক সময় হুট করে সর্দারজি দাঁড়িয়ে হিরালালকে বললেন, ‘দোস্ত, এই পথে আর হাঁটা যাবে না। এখান থেকে তাড়াতাড়ি সটকে পড়তেহবে।’

হিরালাল বললেন, ‘কেন, হুটকরে তোর আবার এই পথে কী হলো?

সর্দারজি বললেন, ‘আরে বোকা, দেখছিস না, সামনে আমার বউ আসছে আর আমার বউয়ের পাশেই যে মেয়েটাকে দেখছিস, ও তো আমার প্রেমিকা। একসঙ্গে দুজনই আমাকে দেখলে আজ একটা অঘটন ঘটে যাবে।’

হিরালাল সামনের দিকে কিছুক্ষণ তাকিয়ে বলল, ‘আরে বাবা, তাড়াতাড়ি এখান থেকে পালাই। আমারও তো ভাই একই ঘটনা!’

 

৩. এক স্টেশনে ট্রেন থেমেছে। পাশের ভদ্রলোক সর্দারজিকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘ভাই, এটা কোন স্টেশন?’

 

সর্দারজি ট্রেনের জানালা দিয়ে কিছুক্ষণ বাইরে তাকিয়ে চিন্তিত মুখে জবাব দিলেন, ‘মনেহচ্ছে, এটা একটা রেলওয়ে স্টেশন।’ -

মন্তব্য