আমাকে মানায়

Rina Gulshan

রীনা গুলশান

আমার স্বজন, যারা সুহৃদ বন্ধুজন, যারা ভালবাসো;

দূর থেকে দেখে শুনে বুঝে নাও Ñ

আমার সুখের ঘর কত বেশী দৃঢ় ঋজু,

আমি কত বেশী সুখের বৈভবে ডুবে আছি।

 

পূর্ণ প্রাপ্তির ভারে, পূর্ণ তৃপ্তির বিষে,

আমি মূলতই মরে আছি মহাশয়!

এই ঘোর বেদনায় সুখেÑ

তোমাদের কারো কোনদিন আগ্রহ সাজেনা!

 

নীলকন্ঠ যে দৃঢ় নীলকন্ঠই,

এই বিষ Ñ কেবোল তাকেই মানায়, আমাকে মানায় Ñ

থাক, এ আমার প্রিয় কাঙ্খার ভিন্নতরÑপাওয়ার

ধন যে, ভিন্ন স্বাদের!

 

আমার উঠোনে আমি প্রায়শই

একজন গর্বিত ছায়ার প্রতাপ দেখি,

কামনা বাসনা তার ভোগের মাতম

নেচে নেচে উঠোন কাঁপায়!

মধ্যরাতেও Ñ আমি অন্ধকারের এই দ্বিধাহীন

শরীরে যে তার তৃপ্ত আদলে চোখে

অন্য কেও, অন্য কোন শরীর Ñ হৃদয় Ñ চোখ

খুঁজে ফেরা চোখ দেখি।

দিবসের রৌদ্রে বুঝি তাই এত রুক্ষ, বিব্রত,

খুব ভালবাসা হীন হয়ে থাকে!!

 

(দুই)

 

আপনার কাছে আপনার এই বারবার হেরে যাওয়া

শুধু লেখা ছিল বুঝি প্রভু??

পরাজয় লেখা ছিল?

আমার ক্যাবোল কিছু ভালবাসা প্রার্থনা ছিল,

প্রেম প্রার্থনা ছিল পদে Ñ

তুমি সেই প্রার্থনা পূঁজার অর্ঘ্য পায়ে দলে দিলে,

ফুল জল ফেলে দিলে,

পায়ে দলে চলে গেলে, এতটুকু কৃপা দিলেনাতো,

এতটুকু ভালবাসা?

ঘরে বা বহিরাঙ্গনে, প্রেমে বা প্রাপ্তিতে

গানে, কবিতার ম্গ্ধু চরনে

আমিতো পাইনি কিছু ভালবাসা,

কিছু সুখ, সুস্থতা, সুস্থ মনন!

 

আপনার কাছে আপনার এই বারবার হেরে যাওয়া

শুধু লেখা ছিলো বুঝি প্রভু!!

পরাজয় লেখা ছিল??

 

আমার স্বজন, যারা সুহৃদ বন্ধুজন, যারা ভালবাসো Ñ

এই ঘোর বেদনার সুখে তোমাদের

কারো কোনদিন আগ্রহ সাজেনা!!

 

-রীনা গুলশান টরোন্টপ্রবাসী গল্পকার কবি ও কলামিস্ট

মন্তব্য