স্বাস্থ্যকর কয়েকটি সবজির গুনাগুণ

vegitables priyo

প্রতিদিন আমরা কত রকমের সবজি খেয়ে থাকি। অনেকে আবার সবজি খেতে একেবারেই পছন্দ করেন না। প্রতিদিনের খাবার তালিকায় বিভিন্ন রকমের সবজি রাখলে আমরা এক দিকে যেমন অনেক পুষ্টি পাই অন্যদিকে বিভিন্ন রোগের থেকে রক্ষা পেতে পারি।

সব সবজিতেই আছে প্রচুর পরিমানে পুষ্টি উপাদান। কিন্তু কিছু কিছু সবজি পুষ্টির দিক দিয়ে অন্য সবজির থেকে এগিয়ে আছে। আসুন তাহলে দেখে নেয়া যাক পুষ্টিমানে সেরা এমন ৭টি সবজির তালিকা।

 

টমেটো

টমেটো একটি ফল, যদিও এটি সবজি হিসেবেই বেশি পরিচিত। টমেটো এবং টমেটো জাত সব কিছুই ক্যান্সার প্রতিরোধের জন্য কার্যকরী। টমেটোতে ভিটামিন এ থেকে শুরু করে কে পর্যন্ত প্রায় সব ভিটামিনই আছে। টমেটো ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ করে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

 

ব্রোকলী

ব্রোকলীতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাকস্থলী ও ফুসফুসের ক্যান্সারের থেকে শরীরকে রক্ষা করে। এছাড়াও ব্রোকলীতে প্রচুর পরিমানে বিটা-ক্যারোটিন, ভিটামিন সি ও ফলেট আছে। ব্রোকলী সর্দি কাশির বিরুদ্ধেও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে।

 

গাজর

কমলা রঙের গাজর একটি বিস্ময়কর সবজি। গাজরে ত্বক, চুল ও চোখ ভালো করার যাদু আছে। গাজরে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি আছে। গাজর শরীরের রক্ত চলাচল প্রক্রিয়া স্বাভাবিক রাখে এবং হৃৎপি-ের উপকার করে।

মিষ্টি আলু

মিষ্টি আলুতে প্রচুর পরিমানে ক্যান্সার প্রতিরোধী উপাদান আছে। মিষ্টি আলুতে আছে ভিটামিন এ, সি ও ম্যাঙ্গানিজ। মিষ্টি আলু ফাইবার ও আয়রনের ভালো উৎস। তাই মিষ্টি আলু পুষ্টি যোগানোর পাশাপাশি হজম প্রক্রিয়াও স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে।

 

পালং শাক

পালং শাকে প্রায় সব ধরণের ভিটামিন ও পুষ্টি উপাদানের উপস্থিতি আছে। বিজ্ঞানীদের ধারণা নিয়মিত পালং শাক খেলে হার্টের সমস্যা, কোলন ক্যান্সার ও আথ্রাইটিস হওয়ার সম্ভাবনা কমে।

 

পেঁয়াজ

পেঁয়াজে প্রচুর পুষ্টি উপাদান আছে। পেঁয়াজ হৃৎপি-ের জন্য অত্যন্ত উপকারী একটি সবজি। পেঁয়াজ ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সহায়তা করে। পেয়াজ শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি হওয়ার প্রক্রিয়াকে ধীরগতি সম্পন্ন করে। – সূত্র : প্রিয়.কম

মন্তব্য