৪১তম টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে দর্শকদের পছন্দের সেরা ছবি-‘লা লা ল্যান্ড’

‘লা লা ল্যান্ড ছবির একটি দৃশ্য। ছবি : অনলাইন

‘লা লা ল্যান্ড ছবির একটি দৃশ্য। ছবি : অনলাইন

রেজাউল হাসান ॥ সদ্য সমাপ্ত ৪১তম টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এবারে দর্শকদের পছন্দের গ্রোলস সেরা ছবি ‘লা লা ল্যান্ড’। এই গৌরবজনক পুরষ্কারে অর্থ মূল্য-১৫ হাজার ডলার। ডেমিয়েন সেজেলি পরিচালিত ‘লা লা ল্যান্ড শুরু থেকেই দর্শকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগায়। ডেমিয়েনের আগের ছবি ছিল হুইপলাশ (২০১৪)। ছবিটি শ্রেষ্ট পাশ্ব চরিত্র, শ্রেষ্ট সম্পাদনা ও শ্রেষ্ট সাউন্ড মিক্স-এই তিন শাখায় অস্কার জিতে নেয়।

চিত্রামোদীদের ধারণা,লা লা ল্যান্ড-ও এ বছর অস্কারে শ্রেষ্ট ছবির ক্যাটাগরিতে পুরষ্কার লাভের সম্ভাবনা আছে। উল্লেখ্য, টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে দর্শকদের পছন্দের সেরা ছবি অস্কারেও পুরষ্কার জিতে নিয়েছে-এমন উদাহরণ রয়েছে। টুয়েলভ ইয়ার্স এ স্লেভ, কিং স্পিচ ও স্লাম ডগ মিলিয়নিয়র অস্কারে সেরা ছবির পুরষ্কার পেয়েছিল।

এবারের চলচ্চিত্র  উৎসবে দর্শক পছন্দের প্রথম রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে গার্থ ডেভিস পরিচালিত লায়ন ছবিটি। দ্বিতীয় রানার আপ হয় সালাম বম্বে খ্যাত ভারতীয় বংশোদ্ভূত উগান্ডা প্রবাসী পরিচালক মিরা নেইর-এর কুইন অব কাটোই। উগান্ডার একজন কিশোর দাবাড়–র সত্য ঘটনা অবলম্বনে ছবিটি নির্মিত।

লা লা ল্যান্ড সম্বন্ধে উৎসবের পরিচালক পিয়ার্স হ্যান্ডলিং বলেন, ছবিটি একটি দর্শক বান্ধব ছবি বলা যায়। ছবিটি প্রথমে দেখেই আমরা পছন্দ করে ফেলি। ছবিটি একাধারে সঙ্গীত বহুল এবং কানাডার রায়ান গসলিং ছিল ছবিটির নক্ষত্র আকর্ষন এবং এমা স্টোনের সাথে জুটি করে রায়ান দর্শকদের অন্তরে ঠাঁই করে নিয়েছে। মিঃ হ্যান্ডলিং বলেন,আমি দেখতে চাই এই পুরষ্কারের বছরে লা লা ল্যান্ড কতোটা সাড়া জাগায়। তবে আমি নিশ্চিত,ছবিটি অস্কারে ঝড় তুলবে।

৮ সেপ্টেম্বর থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর অবধি অনুষ্ঠিত ১১দিন ব্যাপী এই উৎসবে অন্যান্য বিজয়ীরা হলেন, পাবলো ল্যারাইনের জ্যাকী ছবিটি টরন্টো প্লাটফর্ম পুরষ্কার পেয়েছে। অর্থ মূল্য ২৫ হাজার ডলার। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ফার্স্ট লেডী জ্যাকুলিন কেনেডীর চরিত্র অবলম্বনে ছবিটি নির্মিত হয়েছে। জ্যাকির চরিত্রে অভিনয় করেছেন ব্লাক সোয়ান খ্যাত ন্যাটালী পোর্টম্যান।

৩০ হাজার ডলারের পুরষ্কারের অর্থ মূল্যের পূর্ণ দৈর্ঘ চলচ্চিত্রের কানাডা গুজ পুরষ্কার পেয়েছেন ম্যাথু ডেনিস। ছবির নাম দোজ হু মেক রেভ্যুলেশন হাফ ওয়ে ওনলি ডিগ দেয়ার ওন গ্রেভ্স ।এ ছবিটি ’১২ সালে কুইবেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে বেতন বৃদ্ধির প্রতিবাদে ছাত্ররা যে আন্দোলন  গড়ে তুলেছিল সেই প্রেরণা থেকেই ছবিটি নির্মিত হয়েছে।

১৫ হাজার ডলার পুরষ্কার মূল্যের সিটি অব টরন্টোর পুরষ্কার পেয়েছে জনি মা’র ওল্ড স্টোন।

এবারের উৎসবের ছবি সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে পিয়ার্স হ্যান্ডলিং বলেছেন, এ বছর ছিল সত্যিই একটি চমকপ্রদ বছর। ৮৩ টি দেশের সেরা ছবিগুলিই এবারের উৎসবে আমরা প্রদর্শন করতে পেরেছি। দর্শকরাও তৃপ্তি নিয়ে ছবিগুলো দেখেছে।উৎসবে স্বল্প বাজেটের ছবিগুলোও ছিল মন কাড়ার মতো।

উৎসবে কানাডীয় ভারতীয় পরিচালক দীপা মেহতার ছবি এনাটমি অব ভায়লেন্স ছবিটি গালা বিভাগে প্রদর্শিত হয়। ছবিটি ’১২ সালে ভারতের দিল্লীতে বাসে করে বন্ধুর সাথে বেড়াতে বেড়িয়ে এক তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়। ঘটনাটি বিশ্বব্যাপী আলোড়ণ তুলে। ছবিটিতে সেই সত্য ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে।

উৎসবেকলকাতারপ্রখ্যাতঅভিনেত্রীওপরিচালকঅপর্ণাসেনেরকন্যাকনকনাসেনশর্মাতারপ্রথমনির্মিতপূর্ণদৈর্ঘ্যছবিএগেথইনদ্যগানজনিয়েউৎসবেযোগদিয়েছিলেন।এরআগেনামকরণনামেএকটিস্বল্পদৈর্ঘ্যছবিনির্মাণকরেকনকনাসেনশর্মাবেশসুনামকুড়িয়েছিলেন।বাংলাহিন্দীমিলিয়েপ্রায়৪০টিছবিতেঅভিনয়করেছেনকনকনাসেনশর্মা।

মন্তব্য