ভাষ্কর্য অপসারণ ও গ্রেফতার-নির্যাতনের প্রতিবাদে টরন্টোতে উদীচী কানাডার সমাবেশ

UdichiUdichi 2

বাংলাদেশ সুপ্রীমকোর্ট ভবনের সম্মুখ থেকে ন্যায়বিচারের প্রতীক ভাস্কর্য জাস্টিশিয়াকে অপসারণের প্রতিবাদ ও তা পুনঃস্থাপনের দাবী, এর বিরুদ্ধে ঢাকায় শান্তিপুর্ণ আন্দোলনকারীদের উপর পুলিশের জলকামান, লাঠিপেটাসহ গ্রেফতার-নির্যাতন ও মিথ্যা মামলা দায়েরের বিরুদ্ধে উদীচী কানাডা শাখা বিক্ষোভ অবস্থানের আয়োজন করে। অবস্থানকারীরা মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক শক্তির কাছে সরকারের ্নতিস্বীকারের তীব্র নিন্দা এবং সমাজ জীবনে তার ক্ষতিকর প্রভাব তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। তাঁরা সরকারকে এ জাতীয় হীন আপোষ থেকে বিরত থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গণতান্ত্রিক প্রগতিশীল ও অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। এছাড়াও তাঁরা এ উপলক্ষ্যে ঢাকায় আটক সকলের মুক্তি ও নিঃশর্তে মিথ্যা মামলা প্রতাহারের দাবী জানান।

গত ২৮শে মে রবিবার বিকাল ৪.০০টা থেকে ৬.০০টা পর্যন্ত টরন্টোর ড্যানফোর্থে বাঙালীপাড়ার প্রানকেন্দ্র ঘরোয়া চত্ত্বরে উদীচী আহ্বানে বিক্ষোভ অবস্থানে ব্যাপক জনসমাবেশ ঘটে। সেখানে টরন্টো ও আশেপাশের শহরের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ছাড়াও অসংখ্য ছাত্র, শিক্ষক, লেখক, সাংবাদিক, সাধারণ মানুষ উপস্থিত ছিলেন। অনেকে তাদের শিশু-কিশোর সন্তানসহ সমাবেশে যোগদান করেন এবং বিভিন্ন দাবী সম্বলিত ব্যানার ও ফেষ্টুনসহ তীব্র রোদের ভিতর দাড়িয়ে থাকেন। অংশগ্রহনকারীরা বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সম্পাদকমন্ডলী সদস্য আরিফ নুরসহ সকলের মুক্তি এবং তাদের বিরুদ্ধে দায়েকৃত মিথ্যামামলা প্রতাহার এবং নির্দোষ শিক্ষক শ্যামলকান্তি ভদ্রের আটকের নিন্দাসম্বলিত ব্যানার বহন করেন। উদীচী কানাডার সভাপতি আজফার ফেরদৌস ও সাধারণ সম্পাদক সৌমেন সাহা বিক্ষোভ অবস্থানের সমাপনী বক্তব্য রাখেন এবং তারা বিক্ষোভ সমাবেশ যোগদান এবং সফল করার জন্য টরন্টোর সকল সংগঠন এবং ব্যক্তিদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। -সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

মন্তব্য