কানাডার বিশিষ্ট পার্লামেন্টারি য়ানদের সাথে বাংলাদেশ হাইকমিশনের বৈঠক

বঙ্গবন্ধুর খুনী নূর চৌধুরীকে ফেরত পাঠানোর জোরালো দাবী উত্থাপন

Bangladesh High Commission Ottawa 2Bangladesh High Commission Ottawa 1বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং গণতন্ত্র, নারী উন্নয়ন ও মানবাধিকার সংরক্ষণে বাংলাদেশ-কানাডা সর্বাত্মক সহযোগিতার পাশাপাশি কানাডায় পালিয়ে থাকা বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনী নুর চৌধুরীকে ফেরত পাঠানোর জোর দাবী উত্থাপিত হয়েছে কানাডার ফেডারেল পার্লামেন্ট ভবনে অনুষ্ঠিত এক সভায়। ১৯ জন প্রভাবশালী এমপির অংশগ্রহণে ৫ই জুন ২০১৭ (সোমবার) অনুষ্ঠিত এক নৈশভোজ-কর্মসভায় এ দাবী উত্থাপন করেন কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার মিজানুর রহমান। কানাডার সরকার ও গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সাথে অব্যাহত আলাপ-আলোচনার অংশ হিসেবে এ নৈশভোজ-কর্মসভার আয়োজন করে অটোয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন।

সংসদ ভবনের সেন্টার ব্লকে অবস্থিত পার্লামেন্টারী রেস্টুরেন্টে আয়োজিত এ সভায় উপস্থিত ছিলেন কানাডা পার্লামেন্টের সরকারী হিসাব সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান কেভিন সোরেনসন এমপি (ব্যাটল রিভার-ক্রফোর্ড, এ্যালবার্টা থেকে নির্বাচিত); অটোয়ার বার হেভেন-নেপিয়েন থেকে নির্বাচিত চন্দ্রা আরিয়া এমপি; ব্রোসার্ড-সেন্ট ল্যাম্বার্ট, কুইবেক থেকে নির্বাচিত এমপি আলেকজান্ড্রা মেনডেস; ইউনিপেগ সাউথ থেকে নির্বাচিত এবং নারী অধিকার বিষয়ক পার্লামেন্টারী সেক্রেটারী – টেরি ডুগুইড এমপি; টরন্টোর বাঙালী অধ্যুষিত বিচেস-ইস্ট ইয়র্ক থেকে নির্বাচিত এবং কানাডা-বাংলাদেশ পার্লামেন্টারী ফ্রেন্ডশীপ গ্রুপের চেয়ারম্যান নাথানিয়েল এরস্কাইন স্মিথ এমপি; বৃটিশ কলাম্বিয়ার ভ্যাংকুভার-কোয়াড্রা থেকে নির্বাচিত জয়েস মুররে এমপি; অন্টারিও’র কিচেনার থেকে নির্বাচিত কনজারভেটিভ নেতা হ্যারল্ড অলব্রখট্ এমপি; উইনিপেগ সেন্টার থেকে নির্বাচিত রবার্ট ফ্যালকন উলেট এমপি; কুইবেকের ভিমি থেকে নির্বাচিত ইভা নাসিফ এমপি; সাস্কাচুয়ান ওয়েস্ট থেকে নির্বাচিত এনডিপি নেত্রী শেরি বেনসন এমপি; অন্টারিওর মিসিসাগা এরিন মিলস থেকে নির্বাচিত ইকরা খালিদ এমপি; টরন্টোর স্ক্যারবোরো সেন্টার থেকে নির্বাচিত সালমা জাহিদ এমপি; মন্ট্রিয়লের ডোরভাল-লাসাল থেকে নির্বাচিত অঞ্জু ধিলন এমপি; সাস্কাচুয়ানের শেরউড পার্ক ফোর্ট থেকে নির্বাচিত গারনেট জিনাস এমপি; অন্টারিও’র ব্র্যাম্পটন থেকে নির্বাচিত রমেশ সাংঘা এমপি; রিচমন্ড হিল থেকে নির্বাচিত মাজিদ জৌহারী এমপি; স্ক্যারবোরো নর্থ থেকে নির্বাচিত শন চেন এমপি; টরন্টোর ডন ভ্যালী ইন্ট থেকে নির্বাচিত ইয়াসমিন রতনসী এমপি এবং কুইবেকের শ্যাতোগে-ল্যাকোল থেকে নির্বাচিত ব্রেন্ডা শ্যানাহান এমপি। বাংলাদেশ হাই কমিশনের মিনিস্টার নাঈম উদ্দিন আহমেদ, প্রথম সচিব (পাসপোর্ট ও ভিসা) মোঃ সাখাওয়াত হোসেন, প্রথম সচিব (বাণিজ্যিক) দেওয়ান মাহমুদ, প্রথম সচিব (রাজনৈতিক) মোঃ আলাউদ্দিন ভুঁইয়া এবং প্রথম সচিব (কন্সুলার) অপর্ণা রাণী পাল সভায় উপস্থিত ছিলেন এবং অতিথিবৃন্দের সাথে প্রাসঙ্গিক বিষয়ে মতবিনিময় করেন।

সভার শুরুতেই বাংলাদেশ-কানাডা সামগ্রিক দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের উপর এক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর হাই কমিশনার মিজানুর রহমান। তিনি বিগত দশক জুড়ে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্জিত অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধি; জাতিসংঘের এমডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সাফল্য; নারী ক্ষমতায়ন ও অধিকার রক্ষা; বিদ্যুত, জ্বালানী খাতে অগ্রগতি; সড়ক-বন্দর ও অন্যান্য অবকাঠামো খাতে উন্নয়ন এবং সর্বপোরি অর্থনৈতিক অগ্রগতি অর্জনে রূপকল্প ২০১২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের দ্বারা বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলায় সরকারের নানামুখী উদ্যোগের বিস্তারিত তুলে ধরেন। তিনি বলেন বি
গ​ত ১০ বছর ধরে অব্যাহতভাবে ৬ শাতংশের উপর প্রবৃদ্ধি অর্জনের দ্বারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল যা জাতিসংঘসহ বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত ও প্রসংশিত।

আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় বর্তমান সরকারের অনুসৃত নীতিমালার উল্লেখ করে তিনি বলেন, একটি পূর্ণাঙ্গ গ্রহণযোগ্য ও প্রচলিত আইনে প্রকাশ্যে ট্রায়ালের মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচার সম্পন্ন হয়েছে বাংলাদেশে। দেশের সর্বোচ্চ আদালতে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত খুনী নূর চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে পালিয়ে কানাডায় অবস্থান করছে। ন্যায়বিচারের স্বার্থে তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে জোর দাবী উত্থাপন করে তিনি এ বিষয়ে সভায় উপস্থিত কানাডীয় পার্লামেন্টারিয়ানদের সমর্থন কামনা করেন। তিনি বলেন, কানাডা বা পৃথিবীর কোন রাষ্ট্রই একটি দেশের জাতির পিতার খুনীর জন্য সেফ হেভেন হতে পারে না । খুনী নূর চৌধুরীর ক্ষেত্রে তার অপরাধের ভয়াবহতাকে আমলে নিয়ে তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে কানাডীয় সরকারের ইতিবাচক অবস্থান প্রত্যাশা করে তিনি কানাডায় বসবাসরত লক্ষাধিক বাংলাদেশী, যাঁরা ভোট দিয়ে মাননীয় এমপিদের ফেডারেল পার্লামেন্টে নির্বাচিত করেছেন, তাঁদের ঐকান্তিক দাবীর প্রতি সম্মান জানিয়ে এই ভয়ংকর খুনীকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণের উদাত্ত আহ্বন জানান।

এরপর বক্তব্য রাখেন কানাডার সরকারী হিসাব সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির চেয়রম্যান কেভিন সোরেনসন এমপি; বার-হেভেন নেপিয়েনের চন্দ্রা আরিয়া এমপি; নারী অধিকার বিষয়ক পার্লামেন্টারী সেক্রেটারী টেরি ডুগুইড এমিপ; জয়েস মুররে এমপি; আলেকজান্ড্রা মেনডেস এমপি এবং কানাডা-বাংলাদেশ পার্লামেন্টারী ফ্রেন্ডশীপ গ্রুপের চেয়ারম্যান নাথানিয়েল এরস্কাইন স্মিথ এমপি। তাঁরা সকলেই এ নৈশঃভোজ-কর্মসভা আয়োজনের জন্য বাংলাদেশের হাইকমিশনারকে ধন্যবাদ জানান এবং বলেন, কানাডা বাংলাদেশ দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও জোরদার হবে। বঙ্গবন্ধুর খুনীকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে বিশদ আলোচনার জন্য তাঁরা হাইকমিশনারের উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং এ বিষয়ে তাঁদের সচেতনতা আরও সমৃদ্ধ হয়েছে মর্মে মন্তব্য করেন। আইনের মধ্যে থেকে তাঁরা এ বিষয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন বলে জানান।

কানাডীয় পার্লামেন্টরীয়ানদের বক্তব্যের পর প্রশ্নোত্তর পর্বে উপস্থাপিত প্রবন্ধের উপর বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন হাই কমিশনার মিজানুর রহমান এবং দূতাবাসের মিনিস্টার নাঈম উদ্দিন আহমেদ।

এরপর বাংলাদেশে বৈদেশিক বিনিয়োগের সুযোগ সংক্রান্ত এক সংক্ষিপ্ত প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দূতাবাসের প্রথম সচিব (বাণিজ্যিক) দেওয়ান মাহমুদ। প্রবন্ধে বাংলাদেশে চলমান অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ ২২টি বিশেষ ইকনোমিক জোনে বিনিয়োগে কানাডীয় কোম্পানীসমূহকে উদ্বুদ্ধকরণের বিষয়টি বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়।

মন্তব্য