কানাডার নাগরিকত্ব আইনে পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসছে

নাগরিকত্ব আইনে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসছে। ছবি : টরন্টো স্টার

নাগরিকত্ব আইনে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসছে। ছবি : টরন্টো স্টার

প্রবাসী কণ্ঠ ডেস্ক : কানাডার ইমিগ্রেশন মন্ত্রী আহমদ হোসেন কানাডার নাগরিকত্ব আইন আরো সহজ করার জন্য গত ৪ অক্টোবর পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তনের কথা বলেন। এই পরিবর্তনসমূহ বিল সি-৬ এরই অংশ। খবর মেট্রোর।

নাগরিকত্ব আইনে গুরুত্বপূর্ণ যে পাঁচটি পরিবর্তন আনা হচ্ছে তা  নিচে তুলে ধরা হলো। এর কয়েকটি গত জুন মাস থেকেই কার্যকর করা হয়েছে। বাকি পরিবর্তনগুলো, বিশেষ করে কানাডায় শারীরিক উপস্থিতির সময়কাল ও ল্যাঙ্গুয়েজ টেস্ট এর কার্যকারিতা শুরু হবে আগামী ১১ অক্টোবর থেকে।

পরিবর্তিত আইনে বলা হয়েছে, কানাডায় দ্বৈত নাগরিকদের নাগরিকত্ব হরণ করা যাবে না যদি সেই ব্যক্তি কোন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত হয় বা কানাডার জাতীয় স্বার্থ বিরোধী কোন কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত হয়। কারো বিরুদ্ধে এই জাতীয় অপরাধের প্রমাণ পাওয়া গেলে কানাডার প্রচলিত আইনেই তার বিচার করা হবে যেমনটি করা হয় কানাডার অন্যন্য নাগরিকদের বেলায়।

নাগরিকত্বের জন্য আবেদনকারীদেরকে এই মর্মে আর ঘোষণা দিতে হবে না যে নাগরিকত্ব লাভের পর তারা কানাডায়ই বাস করবে। নাগরিকত্ব পাওয়ার পর তারা চাকুরী বা অন্য কোন ব্যক্তিগত কারণে কানাডার বাইরে বাস করতে পারবে যদি তারা চায়।

নাগরিকত্ব লাভের জন্য কতদিন কানাডায় শারীরিকভাবে উপস্থিত থাকতে হবে সে বিষয়েও নতুন আইনে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। সাবেক কনজারভেটিভ সরকার আইন করে গিয়েছিল কানাডার নাগরিকত্ব লাভ করতে হলে ইমিগ্রেন্টদেরকে ৬ বছরের মধ্যে কমপক্ষে ৪ বছর কানাডায় বাস করতে হবে। তারও আগে নিয়ম ছিল ৪ বছরের মধ্যে তিন বছর কানাডায় থাকতে হবে। লিবারেল সরকার এখন বিল সি-৬ এ নিয়ম করেছে ৫ বছরের মধ্যে কমপক্ষে ৩ বছর কানাডায় বাস করতে হবে সিটিজেনশীপের জন্য আবেদন করার আগে। তাছাড়া পার্মান্টে রেসিডেন্সী পাওয়ার আগের সময়টাও কাউন্ট করা হবে যারা ঐ সময়টা কানাডায় অবস্থান করছিলেন। তবে সেই সময়ের অর্ধেকটা কাউন্ট করা হবে। অর্থাৎ কেউ এক বছর অবস্থান করে থাকলে ৬ মাস কাউন্ট করা হবে। পরিবর্তিত এই আইন কার্যকর হবে আগামী ১১ অক্টোবর থেকে।

নাগরিকত্ব লাভের জন্য ল্যাংগুয়েজ এন্ড নলেজ টেস্ট সহজতর করা হয়েছে। কনজারভেটিভ পার্টি আইন করে গিয়েছিল যাদের বয়স ১৪ থেকে ৬৪, তাদেরকে ল্যাংগুয়েজ এন্ড নলেজ টেস্ট পাস করতে হবে নাগরিকত্ব পেতে হলে। বর্তমান সরকার নাগরিকত্ব লাভের জন্য ল্যাংগুয়েজ এন্ড নলেজ টেস্ট এর বয়স ১৮ থেকে ৫৪ বছর  করেছে।

টরন্টো স্টার এর সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে ইমিগ্রেশন মন্ত্রী আহমদ হোসেন বলেন, নাগরিকত্ব লাভ হলো ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়ার শেষ স্তর। বিগত কনজারভেটিভ সরকার নাগরিকত্ব লাভের বিষয়ে কতগুলো অপ্রয়োজনীয় বাধা তৈরী করে গিয়েছিল যা দেশ হিসাবে আমাদের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়িয়েছিল। নাগরিকত্ব সক্রান্ত নতুন আইনে যে পরিবর্তনগুলো আনা হয়েছে তার জন্য আমরা গর্বিত এবং উদ্দীপিত।

নতুন শিথিল আইনের কারণে নাগরিকত্ব লাভের জন্য আবেদন সংখ্যা হঠাৎ বৃদ্ধি পেতে পারে। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আমরা এর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছি। তবে তিনি জানান, নাগরিকত্ব ফি কমানোর কোন পরিকল্পনা নেই। বর্তমানে এই ফি প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৬৩০ ডলার এবং অপ্রাপ্তবয়স্কদের (১৮ বছরের নিচে) জন্য ১০০ ডলার।

সরকারী এক তথ্য থেকে জানা যায়, গত অর্থবছরে (৩১ মার্চ পর্যন্ত) নাগরিকত্ব লাভের আবেদন পত্র জমা হয়েছিল ১০৮,৬৩৫ টি। কিন্তু সাধারণভাবে এই সংখ্যা প্রতিবছর গড়ে দুই লাখ হয়ে থাকে। সাবেক সরকারের কঠিন আইনের কারণে আবেদন সংখ্যা ব্যাপকভাবে হ্রাস পায়।

উল্লেখ্য যে, সাবেক কনজারভেটিভ সরকারের করে যাওয়া ইমিগ্রেশন আইন ‘বিল সি-২৪’ এর বেশ কিছু বিতর্কিত ধারা সংশোধন করার জন্য বর্তমান লিবারেল সরকার ‘বিল সি-৬’ নামের যে বিল সংসদে পেশ করেছিল সেটি গত ১৯ জুন রাজ সম্মতি পায়। এর আগে গত ১৫ জুন বিলটি সিনেটেও পাশ হয় ৫১-২৯ ভোটে।

মন্তব্য