হাউ টু ডীল এ কালেকশন এজেন্সী

 

কিং হোসেন

Picture of King Hossainঅনেকেরই কালেকশন এজেন্সীর বিরক্তিকর হুমকি ধমকির তিক্ত অভিজ্ঞতা থাকতে পারে। আজকে আমরা কালেকশন এজেন্সী বিষয়ে একটু আলোক পাত করতে চাই।

আপনি যদি আপনার দেনা (ডেবট) কোন কারনে পরিশোধ না করে থাকেন, বা পরিশোধ করতে না চান অথবা কোন কারনে করবেন না বলে মনস্থির করে থাকেন তবে কিছু কিছু তথ্য আপনার জেনে রাখা অতীব প্রয়োজন।

প্রথমতঃ আপনার জানা উচিৎ কি প্রকারে আপনাকে  কালেকশন এজেন্সীর বিরক্তিকর টেলিফোন কল  থেকে রেহাই পাবেন।

দ্বিতীয়তঃ কি পদ্ধতিতে আপনি তাদের সাথে একটা আপোষ সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেন।

নিয়ম অনুযায়ী  কালেকশন এজেন্সী আপনাকে কল করার আগে আপনার (ডেবট) সম্পর্কে বিস্তারিত আপনাকে লিখিতভাবে নোটিশ দিতে হবে। আপনি যদি এই লিখিত নোটিশ না পেয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করতে পারেন।

কালেকশন এজেন্সীর নোটিশ এবং কল পাওয়ার পর আপনার পক্ষে যা করা সম্ভব তা হল : তাদের সাথে একটা আপোষ রক্ষা করার চেষ্টা করা। এই আপোষ রক্ষা হতে পারে ডেবট এর পরিমাণ কমানো। হ্রাসকৃত টাকা একবারে অথবা আপনার সুবিধামত কয়েকটি ইনসটলম্যান্ট এ পরিশোধের ব্যবস্থা করা। তবে মনে রাখবেন  যেভাবেই সমঝোতা করুন না কেন এই সমঝোতার কোন পর্যায়েই আপনি কোনভাবেই ডেবট এর দায়িত্ব স্বীকার করে নিবেন না, কেন সেটা পরে ব্যাখ্যা করছি।

কালেকশন এজেন্সীর বিরক্তিকর  কল থামানোর জন্য প্রথম পদক্ষেপ হলো তাদেরকে একটা রেজিষ্টার্ড মেইল পাঠান এবং বলুন যে ডেবট এর পরিমাণ সম্পর্কে আপনার দ্বিমত আছে এবং আপনি বিষয়টি আদালত এর মাধ্যমে ফয়সালা করবেন, কালেকশন এজেন্সীর  মাধ্যমে নয়। এক্ষেত্রে তারা আদালত এর খরচ সময় ইত্যাদি বিবেচনায় মনে করতে পারে যে এটা তাদের জন্য লাভজনক হবে না, এক্ষেত্রে বেশীরভাগ সময়ই তারা আপনাকে খালাশ দিতে বাধ্য হবে। তবে এটা নির্ভর করে ডেবট এর পরিমাণের উপর। যদি এই পরিমাণ অত্যন্ত বেশী হয় তাহলে তারাও আপনাকে কাউন্ট এ দিতে পারে। সে ক্ষেত্রেও আপনার সুযোগ থাকে পরিমাণ কমাতে এবং আপনার আয়ের সাথে সংগতিপূর্ন একটি payment plan এর ।

অথবা একইভাবে আপনি তাদেরকে রেজিষ্টার্ড মেইল পাঠান, বলুন তারা যেন আপনার লইয়ার এর সাথে যোগাযোগ করে। ধরে নিলাম আপনার একজন লইয়ার (উকিল) আছে। আশা করি আপনার এই চিঠি পাওয়ার পর তারা আপনাকে আর কোন কল করবে না, যদি করে তাহলে আপনি উক্ত চিঠির কপি সহ অন্টারিও মিউনিসিপাল কনজিউমার সার্ভিস এ সরাসরি অভিযোগ দায়ের করতে পারেন। উল্ল্লেখ্য, যদি তারা আপনার কাছে ডেবট অধিক দাবি করে, সপ্তাহে ৩ বারের বেশী কল করে যদি কোন প্রকার দুর্ব্যবহার করে, হুমকি দেয় অথবা অহেতুক হয়রানী বা চাপ প্রয়োগ করে তাহলেও তাদেরকে আইনের আওতায় আনার ব্যবস্থা আছে।

আবার অনেক সময় অনেক ক্রেডিটর তাদের পাওনা দাবী করতে অনেক দেরী করে এই রকম পরিস্থিতিতে অনেক সময় আপনাকে পে নাও করতে হতে পারে।

সাধারণত কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ২ (দুই) বছরের ভিতর তাদের পাওনা দাবি করে আইনী ব্যবস্থা নিতে পারে এবং এই ডেবট এর ঘড়ির কাটা শুরু হয় ঠিক ডেবট এর সময় থেকে। আগেই বলেছিলাম ডেবট স্বীকার না করতে। তার কারণ, ধরুন ডেবট এর ১৮ মাসের মাথায় ক্রেডিটর আপনার সাথে যোগাযোগ করলো এবং আপনি ডেবট স্বীকার করে নিলেন অথবা কিছুটা পেমেন্ট করলেন। ঐদিন থেকে ডেবট এর ঘড়ির কাটা আবার নতুন করে শুরু হবে।

দুই বছর সময় কাল যদি আপনি উইদাউট পেমেন্ট পার করতে পারেন এবং এই দুই বছরের ভিতর কোন স্বীকারক্তি অথবা পেমেন্ট না করে থাকেন তাহলে উক্ত ডেবট কার্যকারিতা শেষ হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে আমাদের লিমিটেশন এ্যাক্ট অবশ্যই ধন্যবাদ পেতে পারে। তবে এক্ষেত্রে জেনে রাখা ভাল আপনার ক্রেডিটর আপনার বিষয়ে ক্রেডিট ব্যুারোকে অভিযোগ জানতে পারে সে ক্ষেত্রে আপনার ক্রেডিট রিপোর্টে তার প্রতিফলন হতে পারে। তবে আপনার বিষয়ে এ পরিস্থিতিতে আপনি ক্রেডিট ক্লীনআপ  ব্যবস্থাও করতে পারেন।

সবশেষে বলবো যদি আপনার ডেবট এর পরিমাণ বেশী হয় তাহলে আপনার কেন ক্রেডিট কাউন্সিলর অথবা ব্যাংকক্রাটপ্সী ট্রাসটি অথবা উকিলের স্মরণাপন্ন হতে হবে যারা কিনা আপনার অবস্থার প্রেক্ষিতে আপনাকে আইনগত পরামর্শ দিয়ে আপনাকে সাহস দিতে পারে। তবে মনে রাখবেন সময়ের দেনা সময় মত পরিশোধ করাই সর্বোত্তম। তবে বাস্তবে অনেক সময় সেটা সম্ভব নাও হতে পারে সে ক্ষেত্রে বিকল্প সমাধান জেনে রাখাই ভাল।

This article written by Jayson Schwarz. Translated and sponsor for publication by Realtor King Hossain 416 272 5397. mail : monamiakh@yahoo.ca

মন্তব্য