উদীচী, কানাডা শাখার ২য় লোক উৎসব ২০১৭

অসাম্প্রদায়িক সমাজ গড়তে লোকসংস্কৃতি চর্চার আহ্বান

Udichi 1

বাংলার লোকসংস্কৃতির আর বাংলাদেশের প্রতি নিবিড় ভালোবাসা প্রকাশের মধ্য দিয়ে ১১ই নভেম্বর শনিবার মধ্যরাত্রে শেষ হল বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী কানাডা শাখার ২য় লোক উৎসব ২০১৭। বাংলাদেশ কানাডা হিন্দু কালচারাল সোসাইটির (বিসিএইচসি) অডিটরিয়ামে (16 Dohme Ave) শনিবার বিকাল ৪.০০টায় শুরু হয় এই লোক উৎসব। আবহমান বাংলার লোকসংস্কৃতির উপাদান বাঁশের বাঁশীর তরুণ মেধাবী শিল্পী মোঃ ওয়াহিদ, কানাডায় তবলা ও ঢোলের মেধাবী শিল্পী সজীব চৌধুরী এবং মন্দিরা নিয়ে ভানু গোমেজ দর্শকের সারিতে এসে গ্রাম্য মেলার আমেজ মুর্ছনার ঐক্যতান তুলে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন। সেই মনমাতানো সম্মিলিত বাজনা বাজাতে বাজাতে তারা মঞ্চে উঠে যান, শুরু হয় লোক উৎসব ২০১৭।
এর পরে বাঁশীতে শিল্পী মোঃ ওয়াহিদ নানান লোকগীতির সুরলহরী দিয়ে দর্শকদের মোহিত করেন। তাঁদের সাথে যোগ্য সংগত করেন কি বোর্ড ও পারকেসন বাদনে রনি পালমার এবং মেহেদী ফারুক। Udichi 4
এরপরই শুরু হয় উদীচীর পরিবেশনায় একক লোক সংগীত ও আবৃত্তির অনুষ্ঠান যেখানে দেশের বিভিন্ন এলাকার লোক সংগীত ও লোকজীবন নির্ভর কবিতা পরিবেশন করেন উদীচীর শিল্পীবৃন্দ।
এ পর্বের শেষে উদীচীর নিজস্ব শিল্পীদের পরিবেশনায় শুরু হয় পুঁথিপাঠের আসর। কবি সুব্রত পুরুর রচনায় পুঁথির বিষয়বস্তু হল বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থার সাম্প্রদায়িকীকরনের প্রতিবাদ।
পরবর্তী পরিবেশনায় ছিল জারীগানও উদীচীর নিজস্ব পরিবেশনা। জারী ও পুঁথি উভয় গানে সুর ও পরিচালনায় ছিলেন হাসমত আরা চৌধুরী জুঁই। উদীচী সংগঠনের আদর্শ-উদ্দেশ্য নিয়ে এই জারীগানটি রচনা করেন কবি সুব্রত পুরু। একক সংগীত, কবিতা আবৃত্তি, পুঁথি পাঠ ও জারী গানের পরিবেশনায় উদীচীর শিল্পীদের মধ্যে ছিলেন নাহিদ কবীর কাকলী, সুভাস দাস, অনুপ সেনগুপ্ত, সুনীতি দাস সরদার, তরুণ শিল্পী সুমাইয়া আহমেদ হৃদি, রিনিঝিনি শাখাওয়াত, হাসমত আরা জুঁই, ¯িœগ্ধা চৌধুরী, প্রতিমা সরকার, হোসনে আরা জেমী, রেজা অনিরুদ্ধ, পাপড়ী গোস্বামী, রোকেয়া পারভীন, দেবযানী রয়চৌধুরী লোপা, তাহমিনা আকতার চৌধুরী, ওমর হায়াত, শাহাবুদ্দিন ভুঁইয়া স্বপন এবং সোলায়মান তালুত রবীন। Udichi 2
জারী শেষ হলে মঞ্চে আবারো আসেন উদীচীর নিজস্ব শিল্পীদের দল। এই পর্বে তারা পরিবেশন করেন লোকগীতি আলেখ্য “আগে কি সুন্দর দিন কাঁটাইতাম”। এই দলীয় পরিবেশনাটি পরিচালনায় ছিলেন শিল্পী নাহিদ কবীর কাকলী ও সুভাস দাস। শিল্পীরা মঞ্চ সজ্জায় গ্রামীন আবহ তৈরীসহ পোশাক পরিকল্পনা ও পরিবেশনায় তুলে ধরেন চিরায়থ লোক সংস্কৃতির বৈশিষ্ট্য।
তারপরই শুরু হয় উৎসবের অন্যতম আকর্ষণীয় পরিবেশনা চট্টগ্রাম অঞ্চলের লোক কাহিনী ভিত্তিক গীতিনৃত্যনাট্য ”ভেলুয়া সুন্দরী”। এটির পরিচালনা ও আমির সাধুর চরিত্রে ছিলেন নৃত্য নির্দেশক তাপস দেব। এটিতে অংশ নিয়েছেন একগুচ্ছ শিশু-কিশোরসহ একদল নামী শিল্পী। শিশু শিল্পীদের মধ্যে ছিলেন সুচনা দাস বাঁধন, জাওয়াদ তালুত, সাম্য সাহা, শ্রাবন্তী চক্রবর্তী, আদিবা ইছাক, সায়হান সৈয়দ, শ্রেয়সী প্রামানিক, নৌরিন নায়ার, নিশুতি সাহা, জারিন নেওয়াজ পুর্বা, জাফরিন নেওয়াজ সাবা, সাকিব করিম, সুলগ্না সাহা ও সুচেতা সাহা। গীতিনৃত্যনাট্যের শিল্পীদের মধ্যে ছিলেন চিত্রা দাস, রিনি শাখাওয়াত, অনুপ সেনগুপ্ত, চিত্ত ভৌমিক, দেবযানী রয়চৌধুরী লোপা, ওমর হায়াত, হাসমত আরা চৌধুরী জুঁই। এই পালাটির পোশাক পরিকল্পনা ও সাজসজ্জায় ছিলেন তাপস দেব, চিত্রা দাস ও শুভ্রা সাহা।
ভেলুয়া সুন্দরী শেষ হলেই শুরু হয় আমন্ত্রিত বিশিষ্ট অতিথি শিল্পীদের পরিবেশনা। তাঁরাও এই লোক উৎসবে লোক সংগীত দিয়েই আসরের দর্শকদের মধ্যরাত অবধি আটকে রাখেন। এ পর্যায়ে লোকসঙ্গীত পরিবেশন করেন টরন্টোর অন্যতম জনপ্রিয় লোক সংগীত শিল্পী সারাহ বিল্লাহ, আলমপিয়া মিউজিক স্কুলের অধ্যক্ষ ও সংগীতগুরু এ এফ এম আলীমুজ্জামান, উদীচী কানাডার উপদেষ্টা বিশিষ্ট গায়িকা ইলোরা আমিন ও ক্যালগারী থেকে আগত গুণীশিল্পী পিনু সাত্তার। তাঁদের সাথে যান্ত্রিক সহযোগিতায় ছিলেন নামকরা যন্ত্রশিল্পী সাইয়েদ মনসুর, রনি পালমার ও আসিফ চৌধুরী। টিভি চ্যানেল দেশী টিভি ও নন্দন টিভি সম্প্রচারের উদ্দেশ্যে সমগ্র অনুষ্ঠানটির ভিডিও ধারণ করেন।Udichi 3
লোক উৎসবে শিল্পীদের পরিবেশনায় লোক উপাদান ব্যবহার, মঞ্চসজ্জা ও পোশাক পরিকল্পনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে যেন সেই চিরায়ত গ্রাম বাংলার কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। উৎসবের আয়োজক ও কর্মীবৃন্দ লোক পোশাকে সজ্জিত হয়ে আসেন। হঠাৎ করে হিমাংকের নীচে নেমে যাওয়া তীব্র শীত উপেক্ষা করে সর্বস্তরের বিপুলসংখ্যক প্রবাসী বাঙ্গালী উদীচীর লোক উৎসবে যোগদান করেন। যাদের অধিকাংশই শাড়ী-পাঞ্জাবীসহ লোক পোশাকে সজ্জিত হয়ে আসেন। খাবারের আয়োজনে ও পোশাকসহ অন্যান্য দোকানে দর্শনার্থীদের খোলামেলা পদচারণা মনে করিয়ে দেয় মেলা ও উৎসবের পরিবেশ।
মঞ্চ সজ্জায় ছিলেন অনিরুদ্ধ ভদ্র অমি ও তাকে সহযোগিতা করেন উদীচীর তরুণ প্রজন্মের কাজী অদিতি, আফতাব, সায়হান সৈয়দ, সাকিব করিম, জাওয়াদ তালুত ও সাম্য সাহা। কেবলমাত্র উদীচী কর্মী নয়, টরন্টোসহ কানাডার সাংস্কৃতিকমহলে এ দিন আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু ছিল টিকিট কেঁটে উদীচীর আয়োজিত ২য় লোক উৎসব ২০১৭।Udichi 5
এই মনকাড়া অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনায় ছিলেন রেজা অনিরুদ্ধ, দেবযানী চট্টোপাধ্যায় এবং সাথে নতুন প্রজন্মের সূচনা দাশ বাঁধন। অনুষ্ঠানের অন্যান্য সহায়তায় ছিলেন নাহিদ কবীর কাকলী, মিনারা বেগম, ফায়েজুল করিম, সোলায়মান তালুত রবীন, দুলাল পাল, মুক্তিপ্রসাদ, জুলিয়া নাসরিন, রওশন জাহান দোজা, মুক্তি দে, ফাতেমা আখতার সুর্মাসহ অনেকে।
উৎসবের সাংস্কৃতিক পর্ব শেষ হলে সাধারণ সম্পাদক সৌমেন সাহা সম্প্রতি রংপুরে হিন্দুদের উপর হামলার নিন্দা-প্রতিবাদ এবং দোষীদের গ্রেফতার ও বিচারের আওতায় আনার দাবী জানান। তিনি উদীচীর সাম্প্রতিক কার্যকলাপ যেমন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের পাশাপাশি শিক্ষা সাম্প্রদায়িকীকরণের প্রতিবাদ, সুপ্রিমকোর্ট চত্ত্বর থেকে ভাষ্কর্য অপসারণের প্রতিবাদ, দেশে বন্যার্তদের জন্য সহায়তা সংগ্রহ ও প্রেরণ, নাসিরনগরে হিন্দুদের উপর হামলার নিন্দা-প্রতিবাদ সভা, রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়ার দাবীতে পথ সভা, প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী, প্রতিষ্ঠাতা সত্যেন সেনের জন্ম বার্ষিকী পালন, ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরেন। তিনি উদীচী কানাডা শাখার জন্য উল্লেখযোগ্য অবদান রাখার জন্য সম্প্রতি প্রয়াত উপদেষ্টা আগরতলা মামলার আসামী মুক্তিযোদ্ধা মাহফুজুল বারী এবং শুভানুধ্যায়ী সাহিত্যিক করুণাময় গোস্বামীর কথা কৃতজ্ঞতাসহ স্মরণ করেন। তিনি আরো বলেন, এই অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য বাঙালীর বিপুল সমৃদ্ধ লোক সাংস্কৃতিক উপাদানগুলোকে প্রবাসী ও নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা এবং তার রূপ-রস গ্রহন করতে শেখানো।Udichi 6
সবশেষে কানাডা উদীচীর সভাপতি আজফার ফেরদৌস কানাডার রিমেম্ব্রেন্স ডে (১১ই নভেম্বর)-এর স্মরণ করেন এবং ২য় লোক উৎসব ২০১৭ সফল ও সুষ্ঠুভাবে সমাপ্তিতে সহায়তা করার জন্য সকল কর্মীদের ঐকান্তিক ও কষ্টসাধ্য সম্মিলিত প্রচেষ্টার জন্য অভিনন্দন জানান এবং একই সাথে উদীচীর উপদেষ্টা পরিষদ, আগত অতিথি শিল্পী, যন্ত্র কুশলী, সাধারণ সমর্থক, শুভানুধ্যায়ী, আর্থিক সহায়তাকারী, উপস্থিত মিডিয়া ব্যক্তিত্ত্ব এবং সর্বোপরী দর্শকদেরকেও সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রানঢালা অভিনন্দন এবং ভবিষ্যতে উদীচীর পাশে থাকার জন্য আহ্বান জানান। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি

মন্তব্য