উপনির্বাচনে লিবারেল পার্টির জয় কনজার্ভেটিভ পার্টির নেতা শিয়ার এবং এনডিপি’র নেতা জাগমিত সিং জন্য দুঃসংবাদের বার্তা বয়ে আনলো

বিট্রিশ কলম্বিয়ার ‘সাউথ সুরি-হোয়াইট রক’ রাইডিং এর উপনির্বাচনে লিবারেল পার্টির গর্ডি হগ ৪৭% ভোট পেয়ে আসনটির দখল নেন। ছবিতে প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে গর্ডিকে দেখা যাচেছ। ছবি : গডি হক /ফেসবুক

বিট্রিশ কলম্বিয়ার ‘সাউথ সুরি-হোয়াইট রক’ রাইডিং এর উপনির্বাচনে লিবারেল পার্টির গর্ডি হগ ৪৭% ভোট পেয়ে আসনটির দখল নেন। ছবিতে প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে গর্ডিকে দেখা যাচেছ। ছবি : গডি হক /ফেসবুক

প্রবাসী কণ্ঠ : গত সংখ্যায় আমাদের ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদ প্রতিবেদনে  Ipsos poll এর একটি জরীপের সূত্র উল্ল্লেখ বলা হয়েছিল, যদি এই মুহুর্তে কানাডায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় তবে লিবারেল পার্টি আবারো নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা পাবে। ডিসেম্বর মাসের ১১ তারিখে কানাডার অন্টারিও, ব্রিটিশ কলম্বিয়া, সাচকাচুয়ান ও নিউফাউন্ডল্যান্ড এ্যান্ড ল্যাব্রাডর এ অনুষ্ঠিত চারটি উপনির্বাচনে সেই তথ্যের পক্ষেই যেন জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেল। চারটি নির্বাচনের তিনটিতেই লিবারেল পার্টি জয়লাভ করে। এমনকি ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় সুদীর্ঘ সময় ধরে কনজারভেটিভদের দখলে থাকা ‘সাউথ সুরি-হোয়াইট রক’ রাইডিং এর আসনটিও চলে আসে লিবারেল পার্টির দখলে। চারটি আসনের উপনির্বাচনের ফলাফল প্রধান বিরোধী দল কনজার্ভেটিভ পার্টির নেতা এন্ড্রু শিয়ার ও অপর বিরোধী দল এনডিপি’র নেতা জাগমিত সিং এর প্রতি দুঃসংবাদেরই বার্তা বয়ে আনলো বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। গত ১১ ডিসেম্বর তারিখে অনুষ্ঠিত বিট্রিশ কলম্বিয়ার ‘সাউথ সুরি-হোয়াইট রক’ রাইডিং এর উপনির্বাচনে লিবারেল পার্টির গর্ডি হগ ৪৭% ভোট পেয়ে আসনটির দখল নেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজার্ভেটিভ পার্টির প্রার্থী কেরী ফিন্ডলে ভোট পান ৪২.১%। অনেকের ধারণা কনজার্ভেটিভ পার্টির প্রধান এন্ড্রু শিয়ার এর জন্য এই পরাজয় ঘটেছে। কারণ তার নেতৃত্বে দলটি ইতিমধ্যেই দুইটি উপনির্বাচনে পরাজিত হয়েছে। তবে কেরী এই ধারণার সঙ্গে একমত নন। তিনি বলেন, আমি প্রচারণার জন্য প্রয়োজনীয় সময় পায়নি। গর্ডি হগ গত ২০ ধরে সুরি-হোয়াইট রক রাইডিং এ ব্রিটিশ কলম্বিয়ার প্রভিন্সিয়াল পার্লামেন্টের সদস্য ছিলেন। তিনি হোয়াইট রক এর মেয়র হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেন দশ বছর। এদিকে টরন্টোর স্কারবরো-এজিনকোর্ট রাইডিং এর উপনির্বাচনে জয়ী হয়েছেন লিবারেল প্রার্থী জিন ইয়েপ। তিনি ভোট পেয়েছেন ৪৯.৪%। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি কনজার্ভেটিভ পার্টির ডায়াসঙ জো পেয়েছেন ৪০.৫% ভোট। এই আসনটি আগেও লিবারেল পার্টির দখলেই ছিল। জিন ইয়েপের স্বামী আরনোল্ড চেন ছিলেন এই রাইডিং এর এমপি। তিনি দুরারোগ্য ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে গত সেপ্টেম্বপরে মৃত্যুবরণ করেন। সিবিসি নিউজ এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কানাডার রাজনৈতিক ইতিহাসে জিন ইয়েপ হলেন ১১তম মহিলা যিনি স্বামীর মৃত্যু বা অসুস্থার কারণে পদত্যাগ করার পর একই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হন। জিন ও চেন এর দাম্পত্য জীবনের বয়স ছিল ১৯ বছর। তারা লিবারেল পার্টির এক নমিনেশন মিটিং এ একে অপরের সঙ্গে প্রথম পরিচিত হন। সেই পরিচয় থেকে প্রণয় এবং প্রণয় থেকে বিয়ে। লিবারেল পার্টি গত ১১ ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে তৃতীয় আসনটি পায় নিউফাউন্ডল্যান্ড এ্যান্ড ল্যাব্রাডর এ। চুরেন্স রাজার্স এই প্রভিন্সের ‘বনভিস্তা-বুরিন-ট্রিনিটি’ রাইডিং থেকে লিবারেল পার্টির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নির্বাচনে জয়ী হন। তিনি ভোট পান ৬৯.২%। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী মাইক উইন্সসর পান ২২.৯% ভোট। চুরেন্স রাজার্স ইতিপূর্বে ‘সেন্টারভিল-ওয়েরাম-ট্রিনিটি’র মেয়র ছিলেন। এছাড়াও তিনি নিউফাউন্ডল্যান্ড এ্যান্ড ল্যাব্রাডর ফেডারেশন অব মিউনিসিপালিটির প্রেসিডেন্ট ছিলেন। এই আসনটি লিবারেল পার্টির দখলেই ছিল। বলা হয়ে থাকে যে, এটি লিবারেল পার্টির সবচেয়ে নিরাপদ আসনগুলোর একটি। গত জাতীয় নির্বাচনে লিবারেল পার্টির হয়ে এখান থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন জুডি ফুট। কিন্তু পরে অসুস্থতাজনিত কারণে তিনি অবসরে চলে যাওয়াতে আসনটি শুন্য হয়েছিল। কনজার্ভেটিভ পার্টি এবারের উপনির্বাচনে যে আসনটি ধরে রাখতে পেরেছে সেটি হলো সাচকাচুয়ানের ‘ব্যাটেলফোর্ডস-লয়েডমিনিস্টার’। ঐ আসনে জয়ী হন কনজার্ভেটিভ পার্টির রোজমেরী ফাল্ক। তিনি ভোট পান ৭০%। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি এনডিপি’র প্রার্থী ম্যাট ফেডলার ভোট পান মাত্র ১৩.২%। আর লিবারেল প্রার্থী ল্যারী ইনগ্রাম ভোট পান ১০.৪%। এই আসনটি খালি হয় কনজার্ভেটিভ পার্টির সাবেক এমপি গ্যারি রিট্জ গত আগস্ট মাসে পদত্যাগের ঘোষণা দেয়ার পর। নির্বাচিত হওয়ার আগে রোজমেরী একজন সমাজকর্মী ছিলেন এবং কনজার্ভেটিভ এমপি আরনল্ড ভিয়ার্সন এর এ্যাসিস্টেন্ট হিসাবে কিছুদিন কাজ করেছেন। এবারের উপনির্বাচনে লিবারেল পার্টি চারটি আসনের মধ্যে তিনটিতে জয়ী হলেও কনজার্ভেটিভ পার্টির জন্য কিছুটা সুখবরও রয়েছে। আর সেই সুখবরটি হলো, যে চারটি রাইডিং বা আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেখানে দলটির জনপ্রিয়তা গড়ে ৫.৫ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। আর ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনের পর এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ১২ টি উপনির্বাচনে এই বৃদ্ধি গড়ে ৩.৬ পয়েন্ট। অন্যদিকেএনডিপি’রঅবস্থাখুবএকটাসুবিধারবলেমনেহচেছনা।  জাগমিতসিংদলটিরদায়িত্বনেয়ারপরছয়টিউপনির্বাচনঅনুষ্ঠিতহয়েছে।এবংঐছয়টিরাইডিংএদেখাগেছেদলেরভোটপাওয়ারহারআগেরতুলনায়কমেগেছে।

মন্তব্য