কানাডীয় ধনকুবের দম্পতির ‘রহস্যজনক মৃত্যু’

এপোটেক্স এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ব্যারি শেরম্যান ও তার স্ত্রী হানিকে টরন্টোতে তাদের নিজ বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। ছবি : কানাডিয়ান প্রেস

এপোটেক্স এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ব্যারি শেরম্যান ও তার স্ত্রী হানিকে টরন্টোতে তাদের নিজ বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। ছবি : কানাডিয়ান প্রেস

কানাডার জায়েন্ট ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানী এপোটেক্স এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ধনকুবের ব্যবসায়ী ব্যারি শেরম্যান ও তার স্ত্রী হানিকে টরন্টোতে তাদের নিজ বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। তাদের মৃত্যুকে ‘রহস্যজনক’ বলে বর্ণনা করেছে পুলিশ। গত ১৫ ডিসেম্বর টরোন্টোতে নিজেদের বাড়ির নিচতলায় ব্যারি শেরম্যান ও তার স্ত্রী হানির মৃতদেহ পাওয়া যায়। ব্যারি শেরম্যান দেশের সবচেয়ে ধনাঢ্য ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। জনসেবক বা দাতা হিসেবেও তার খ্যাতি ছিল।

বিবিসি জানায়, ব্যারি ও তার স্ত্রীর মৃত্যু বিষয়ে পুলিশ খুব বেশি তথ্য দেয়নি। কানাডার অন্টারিও প্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এরিক হসকিন্স এক টুইটার বার্তায় বলেন, ‘এই ঘটনায় আমি কথা বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। আমার প্রিয় বন্ধু ব্যারি ও তার স্ত্রী হানিকে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। তারা ছিলেন চমৎকার মানুষ। অসাধারণ দাতা এবং স্বাস্থ্যসেবায় অনন্য নেতা। ‘প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রু–ডোও এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন। এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, ‘ব্যারি ও হানি শেরম্যানের হঠাৎ মৃত্যুর খবরে সোফি ও আমি খুবই দুঃখিত।’

পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, ১৫ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকালে ব্যারির বাড়ি থেকে পুলিশের জরুরি বিভাগে ফোন দেয়া হয়েছিল। পুলিশের কনস্টেবল ডেভিড হপকিনস বলেন, ‘তাদের মৃত্যুর ঘটনাটি সন্দেহের সৃষ্টি করছে এবং আমরা সেভাবেই ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

গত ২১ ডিসেম্বর টরন্টোতে ব্যারি ও হানি শেরম্যানের আন্তেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, অন্টারিওর প্রিমিয়ার ক্যাথলিন উইন, টরন্টোর মেয়র জন টরি সহ প্রায় সহস্রাধিক ব্যক্তি।

কানাডিয়ান বিজনেস ম্যাগাজিন এর তথ্য অনুযায়ী ব্যারির ব্যক্তিগত সম্পদের পরিমাণ ৪.৭৭ বিলিয়ন ডলার। কানাডায় ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় ব্যারির অবস্থান ১৫তম।  তিনি ১৯৭৪ সালে এ্যাপোটেক্স ইনকর্পোরেশন প্রতিষ্ঠা করেন। এটি এখন বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম ওষুধ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও তার স্ত্রীর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে অ্যাপোটেক্স।

মন্তব্য